ভারত মায়ের দিকে যারা চোখ তুলে তাকিয়েছিল তাদের উচিত শিক্ষা দিয়ে গেছে ভারতীয় সেনারা

PM Modi remarks after meeting with various Party Presidents



PM Modi remarks after meeting with various Party Presidents : গত সোমবার লাদাখ সীমান্তে ভারত চীন সংঘর্ষের পর ২০ জন সেনা নিহত হন । এবং তারপরই নরেন্দ্র মোদী লাদাখ সীমান্ত সমস্যা নিয়ে সর্বদলিয় বৈঠকের ডাক দেন ।

সর্বদলীয় বৈঠকের পর যা প্রধানমন্ত্রী বললেন…

 দেশের সীমান্তে সুরক্ষার্থে দেশের সেনার  দিন রাত পাহাড়ের মত দাড়িয়ে আছে । তাদের বীরত্বে  , তাদের কৌশল , তাদের বুদ্ধিতে দেশের অটুট বিশ্বাস রয়েছে । এই সর্বদলিয় বৈঠকের মাধ্যমে আমি শহীদের পরিবারকে আশ্বস্থ করতে চাই যে সমগ্র দেশ তাদের সাথে আছে ।  সমগ্র দেশ তাদের শ্রদ্ধা ও প্রনাম করে । 


পূর্ব লাদাখে যা হয়েছে সেই বিষয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রীর এবং বিদেশমন্ত্রীর কথা শুনেছেন এবং তাদের দেওয়া প্রেজেস্টেশনও দেখেছেন ।  না সেখানে আমাদের দেশে কেউ অনুপ্রবেশ করেছিল । না কেউ করে আছে । আর না কোন অঞ্চল অন্য কোন দেশ অধিগ্রহন করেছে । লাদাখ আমাদের ২০ জন সেনা শহীদ হয়েছেন কিন্তু যারা ভারত মায়ের দিকে চোখ তুলে তাকিয়েছিল তাদের উচিত শিক্ষা ভারতীয় সেনারা দিয়ে গিয়েছেন । তাদের এই পরাক্রম , তাদের এই বলিদান দেশবাসী চিরকাল মনে রাখবে । 

বন্ধুরা এটা ঠিক যে  চিনের দ্বারা LAC তে যেটা করা হয়েছে তাতে গোটা দেশ দুঃখিত এবং আক্রোশ প্রকাশ করেছেন । এই বিষয়টি আজকের বৈঠকেও বারবার উঠে এসেছে । আমি আপনাদেরও আশ্বস্থ করতে চাই যে আমাদের সেনা দেশের রক্ষার্থে কোন কোন ত্রুটি রাখছে না । কূটনীতি হোক বা প্রতিরোধ হোক জল স্থল আকাশে সব দিকেই আমাদের সেনাদের যেটা করা উচিত সেটা করছেন । 


আজ আমাদের সেই ক্ষমতা রয়েছে যে কেউই আমাদের দেশের এক ইঞ্চি জমির উপরে চোখ তুলে দেখার ক্ষমতা নেই । আজ দেশের সেনা সব ক্ষেত্রেই একসাথে লড়াই করতে সক্ষম । এই অবস্থায় আমরা যেমন একদিকে সেনাকে যেমন পদক্ষেপ নেওয়ার ক্ষমতা দিয়েছি । ঠিক তেমনই অন্যদিকে কুটিনীটির মাধ্যমেও চীনকে আমাদের ভাবনা স্পষ্ট করে দিয়েছি । 

 

ভারত শান্তি ও বন্ধুত্ব চাই । কিন্ত  আমদের কাছে দেশের সার্বভৌমত্বের রক্ষা করা সব থেকে আগে  । এবং আপনারাও সকলেই সেই ভাবনাকেই তুলে ধরেছেন । 

বন্ধুরা গত পাঁচবছরে দেশ নিজের সীমাকে সুরক্ষিত করতে সীমান্ত এলাকায় পরিকাঠামোর উন্নয়নে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে । আমাদের সেনার যেগুলো অবশ্য প্রয়োজনীয় যেমন যুদ্ধ জাহাজ , আধুনিক হেলিকাপটার , মিসাইল ডিফেন্স সিস্টেম প্রভৃতির উন্নয়নে আমরা জোর দিয়েছি । 

নতুন তৈরি হওয়া পরিকাঠামর উন্নয়নের ফলে LAC তে আমাদের পেট্রোলিং ও বেড়েছে  । আর এর ফলে আমাদের সীমান্ত আরও সুরক্ষিত হয়েছে । সীমান্তে হওয়া গতিবিধির উপর সময়ে নজর দেওয়া সম্ভব হচ্ছে । যেসকল ক্ষেত্রে আগে সেভাবে নজর দেওয়া সম্ভব হত না সেখানেও আমাদের জওয়ান সঠিকভাবে নজর রাখতে পারছে । এবং উপযুক্ত ব্যবস্থাও নিতে পারছে । 


উন্নত পরিকাঠামোর ফলে আরও একটি সুবিধা হয়েছে যেখানে আমাদের সেনা কঠিন পরিস্থিতিতে পাহারা দিচ্ছে সেখানে প্রয়োজনীয় জিনিস সহজে পৌঁছান সম্ভব হচ্ছে । 

 

বন্ধুরা দেশের হিত সবসময়ই আমাদের অগ্রাধিকার । ভারত কখনই কোন বাইরের দেশের দ্বারা প্রভাবিত হয়নি । আমি আপনাদের সকলকে এবং সকল রাজনৈতিক দলকে সুনিশ্চিত করতে চাই আমাদের সেনা দেশের সুরক্ষা করতে সমর্থ । আমরা তাদের যথাযথ পদক্ষেপ নেওয়া জন্য সম্পূর্ণ ছাড় দেওয়া আছে । 


সকল রাজনৈতিক দল এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে নিজেদের মতামত দিয়েছেন , পরামর্শ দিয়েছেন এর জন্য আমি সকল দলের নেতৃত্বকে ধন্যবাদ ।  আপনাদের এই পরামর্শ আগামীদিনে কাজে লাগাবো এবং আমার বিশ্বাস এতে করে আমদের দেশের লাভ হবে । আপনারা যে এই পরিস্থিতিতে এগিয়ে এসেছেন এটা যেমন দেশের মনোবল এবং সেনার মনোবল বাড়াবে একইসাথে সারা বিশ্বের কাছে যে বার্তা পৌঁছানোর দরকার সেটা এই বৈঠকের দ্বারা পৌঁছে গেছে । আপনাদের সকলকে এই কারনে অভিনন্দন এবং ধন্যবাদ জানাচ্ছি । 


কি বললেন প্রধানমন্ত্রী দেখুন সেই ভিডিও




3 Comments

আপনার মতামত জানাতে কমেন্ট করুন

Post a comment

আপনার মতামত জানাতে কমেন্ট করুন

Previous Post Next Post